শিবসেনার জন্য বিহারে মুখ্যমন্ত্রী হতে পেরেছেন নীতিশ কুমার, দাবি উদ্ধব ঠাকরের দলের

বিহার বিধানসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণার পরই নানা মহলে তা নিয়ে শুরু হয়ে গেল রাজনৈতিক তরজা। এদিন বিহারের ফলাফল নিয়ে এক বিস্ফোরক দাবি করা হল শিবসেনার তরফ থেকে। মহারাষ্ট্রে ক্ষমতাসীন দল শিবসেনার দাবি অনুযায়ী, বিহারে নীতিশ কুমার মুখ্যমন্ত্রী হলে তার ‘ক্রেডিট’ পাওয়া উচিত শিবসেনারই। উদ্ধব ঠাকরের নেতৃত্বাধীন শিবসেনার এহেন দাবি নিয়ে স্বভাবতই জোর চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

বুধবার শিবসেনা দলের মুখপত্র ‘সামনা’তে বিহার বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে মন্তব্য করা হয়েছে। সেখানে আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদবের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াইকে কুর্নিশ জানিয়েছে শিবসেনা। সেই সঙ্গে গতবছরের মহারাষ্ট্রের নির্বাচনের প্রসঙ্গে টেনে কটাক্ষ করা হয়েছে কেন্দ্রীয় শাসকদল বিজেপিকেও।

শিবসেনা জানিয়েছে, বিজেপির শীর্ষ নেতা অমিত শাহ নির্বাচনের আগে ঘোষণা করেছিলেন, কম মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের দল কম ভোট পেলেও এনডিএ জিতলে জোটের শরিক হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী পদ লাভ করবেন নীতিশই। অনুরূপ একটি ঘোষণা বিজেপির তরফ থেকে করা হয়েছিল গতবছর মহারাষ্ট্রের নির্বাচনের সময়ও। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি রাখা হয় নি। “এরপরই রাজ্য এক রাজনৈতিক মহাভারতের সাক্ষী থেকেছিল”, দাবি শিবসেনার।

‘সামনা’য় আরো লেখা হয়, “যদি নীতিশ কুমার কম ভোট পেয়েও মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হন, তার কৃতিত্ব শিবসেনারই প্রাপ্য।” উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে শিবসেনা এবং বিজেপি মহারাষ্ট্রে একত্রে ভোটে দাঁড়িয়েছিল, কিন্তু নির্বাচনের ফলাফল পর পারস্পরিক মতভেদের কারণে সেই জোট ভেঙে যায়। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হন শিবসেনা দলের উদ্ধব ঠাকরে। বিজেপির সঙ্গে ফলাফল পরবর্তী সেই মতান্তরের কথাই বিহার বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলের পর আরো একবার স্মরণ করিয়ে দিয়েছে শিবসেনা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিহার বিধানসভা নির্বাচনে এনডিএ জোট এবার মোট ১২৫টি আসনে জয়লাভ করেছে। এর মধ্যে জোটের শরিক হিসেবে বিজেপি ৭০টিরও বেশি আসন পেয়েছে, অন্যদিকে নীতিশ কুমারের জনতা দল ইউনাইটেড ৫০টি আসনও পায় নি। তেজস্বী যাদবের আরজেডি পেয়েছে ১১০টি আসন।

Reply