“আ’ ত্ম’ হ’ ‘ত্যা করে সরকারকে দোষ দিলে কি মুখ্যমন্ত্রী গ্রেপ্তার হবেন?”, প্রশ্ন অর্ণবের উকিলের

জনপ্রিয় সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীর গ্রে’ ফ’ তার এবং জামিনের আবেদন প্রসঙ্গে জারি তরজা। এবার সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টে শুরু হল অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আবেদনের শুনানি। নিম্ন আদালত এবং হাইকোর্টে পর পর দুবার খারিজ হয়ে যাওয়ার পর অবশেষে সুপ্রিম কোর্টে জামিনের জন্য আবেদন করেছিলেন রিপাবলিক টিভির সঞ্চালক অর্ণব গোস্বামী।

বস্তুত, আজ বুধবার শীর্ষ আদালতে অর্ণব গোস্বামীর অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আবেদনের শুনানি চলছে। জানা গেছে, রিপাবলিক টিভির সঞ্চালক ও অন্যতম প্রধান এডিটরের হয়ে শীর্ষ আদালতে সওয়াল করছেন আইনজীবী হরিশ সালভে। তাঁর মক্কেল অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ যে আদতে আরো গভীর তদন্ত সাপেক্ষ সে কথাই এদিন বারবার আদালতের সামনে তুলে ধরেন হরিশ সালভে। সেই সঙ্গে অর্ণব গোস্বামীর জামিন মঞ্জুর হওয়া উচিত বলেও দাবি করেছেন তিনি।

আদালত সূত্রের খবর, এদিন শুনানি চলাকালীন অর্ণব গোস্বামীর পক্ষে আইনজীবী হরিশ সালভে জানান, আ’ ত্ম’ হ’ ত্যা’ য়’ প্ররোচনার অভিযোগ প্রমাণ করার জন্য প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সংযোগ প্রয়োজন। শুধু তাই নয়, নিজের বক্তব্য পরিষ্কার করার জন্য দৃষ্টান্ত দিতে গিয়ে তিনি টেনে আনেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর কথাও। বলেন, “মহারাষ্ট্রে যদি কোনও ব্যক্তি আত্মহত্যা করে এবং সরকারকে দোষ দেয়, তাহলে কি মুখ্যমন্ত্রীকে গ্রে’ প্তা’ র’ করা হবে?” এরপরই এই মামলায় প্রক্সিমিটি টেস্টের দাবি জানান আইনজীবী হরিশ সালভে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দুবছর আগে ২০১৮ সালে এক ইন্টিরিয়র ডিজাইনার অন্বয় নাইক এবং তাঁর মায়ের আ’ ত্ম’ হ’ ত্যা’ য়’ প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে গত ৪ঠা নভেম্বর বাড়ি থেকে গ্রে’ ফ’ তা’ র’ করা হয় অর্ণব গোস্বামীকে। ওই ব্যক্তির সু’ ই’ সা’ ই’ ড’ নোটে অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে প্র’ তা’ র’ ণা’ র অভিযোগ ছিল বলে জানা গেছে। এর আগে অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের জন্য অর্ণব গোস্বামী আবেদন করেছিলেন আলিবাগ আদালত এবং মুম্বাই হাইকোর্টে। কিন্তু তাঁর আবেদন নাকচ করা হয়। তারপর জামিনের জন্য সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে তিনি।

Reply