রাষ্ট্রসঙ্ঘের গুরুত্বপূর্ণ পদ পেলেন বাঙালি কন্যা বিদিশা মৈত্র, জগতসভায় একধাপ এগিয়ে গেল ভারত!

এবার বিশ্ব দরবারে ভারতের মুখ উজ্জ্বল করলেন বাঙালি কন্যা বিদিশা মৈত্র। রাষ্ট্রসঙ্ঘের একটি গুরুত্বপূর্ণ কমিটিতে নিজের যোগ্যতায় স্থান অর্জন করেছেন ভারতীয় কূটনীতিক বিদিশা মৈত্র। ২০০৮ সালের ইন্ডিয়ান ফরেন সার্ভিস ব্যাচের অফিসার বিদিশা। তিনি সম্প্রতি রাষ্ট্রসংঘের অর্থ ও বাজেট বরাদ্দ নিয়ন্ত্রক কমিটির সদস্য নির্বাচিত হলেন। তিনি পেয়েছিলেন ১২৬টি ভোট। তিনি যে কমিটির হয়ে নির্বাচিত হয়েছেন সেই কমিটির নাম অ্যাডভাইসরি কমিটি অন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যান্ড বাজেটারি কোশ্চন (ACABQ)।

পৃথিবী জুড়ে রাষ্ট্রসংঘের যাবতীয় আর্থিক কর্মকান্ডের জন্য যে বাজেট বরাদ্দ হয়, তার যে অডিট হয় হিসাব নিকাশের সেই সমস্ত কাজকর্মে তাঁর সম্মতি দেওয়ার বা অরাজি হওয়ার ক্ষমতা থাকবে।

বিদিশার এই জয়কে কূটনৈতিকভাবে ভারতের জন্য লাভবান বলেই মনে করছেন ভারতীয় কূটনীতিবিদরা কারণ যে পদে নির্বাচিত হয়েছেন তা সাধারণত এলাকাভিত্তিক। ফলে ভারতের ধারণা যে রাষ্ট্রসংঘ ভারতকে যে কতটা গুরুত্ব দেয় তা গোটা বিশ্বের সামনে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে বিদিশার জয়ের মাধ্যমে। ‌আগামী বছর থেকে আরও দু’বছরের জন্য রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্যপদে বসছে ভারত।

ফলে একটা কথা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে যে বিদিশির জয় কতটা তাৎপর্যপূর্ণ। রাষ্ট্রসংঘে ভারতের স্থায়ী দূত টি এস তিরুমূর্তি বলছিলেন,”বিদিশার এই নির্বাচন ভারতের প্রতি রাষ্ট্রসংঘের সদস্য দেশগুলির সমর্থনের বড়সড় নিদর্শন। আমি নিশ্চিত আগামী দিনে তিনি অ্যাডভাইসরি কমিটি অন অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অ্যান্ড বাজেটারি কোশ্চনে নিরপেক্ষ, লক্ষণীয় এবং লিঙ্গবৈষম্যহীন পদক্ষেপ করবেন।”

তবে বিদিশাকে অন্যভাবে অনেকেই চেনেন কারণ গত বছর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান যে ভারত বিরোধী ভাষণ দিয়েছিলেন তার বিরুদ্ধে বাছাই করা শব্দ দিয়ে কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন বিদিশা মৈত্র সেই সময় সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিল।

Reply