আইটি সেল হাতিয়ার, আগামী নির্বাচনে বিজেপি দু’শোর বেশি আসন পাবে, বিমানবন্দরে নেমেই দাবি করলেন অমিত মালব্য

সামনেই বাংলার বিধানসভা নির্বাচন। এর আগেই নিজেদের শক্ত করতে এবার গা ঝাড়া দিয়ে মাঠে নামলো বঙ্গ বিজেপির সাইবার সেল। বর্তমানে প্রযুক্তির যুগে নির্বাচনে সাইবার সেলের গুরুত্ব অপরিসীম এবং এই কথায় বিজেপি অনেক আগেই বুঝে গিয়েছিল। তাই নবপ্রজন্মের মন পেতে বিজেপির সাইবার সেল অনেকদিন ধরেই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে সচেষ্ট। ‌

এবার দিল্লি থেকে বাংলায় এলেন বিজেপির আইটি সেল এর সর্বভারতীয় আহবায়ক অমিত মালব্য। বস্তুত ভোটের আগে বাংলার হাওয়া বুঝে নিতেই আগমন অমিতের। বস্তুত গত বুধবার তাকে রাজ্য বিজেপির সরকারি কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এবং তিনি এই প্রথম কোনো সাংগঠনিক দায়িত্ব সামলাচ্ছেন ফলে তার ওপর চাপটা একটু বেশি। আর তাই সোমবারেই তিনি কলকাতায় চলে এসেছেন বঙ্গ বিজেপির হাল হকিকত বুঝতে এবং তৃণমূল কী কী করতে পারে তার সম্ভাবনা আঁচ করতে। কলকাতা বিমানবন্দরে নেমেই তিনি বলেন, আগামী বছর বিধানসভা নির্বাচনে এই রাজ্যে দু’শোর বেশি আসন পাবে বিজেপি এবং তারাই ক্ষমতায় আসবে বাংলায়।

অন্যদিকে আগামীকাল কলকাতায় বৈঠকে বসছেন বিজেপির রাজ্য শীর্ষ নেতৃত্ব। সেখানে বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষকরাও থাকছেন। এই বৈঠকে অমিত মালব্য থাকবেন।এখানেই রাজ্য স্তরের যে আইটি সেল রয়েছে সেখানে রদবদলের সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ অমিত মালব্য আইটি সেলকে শক্তিশালী করে এবার বিজেপিকে ভোট বৈতরণী পার করাতে চাইছেন।

অমিত শাহ এর আগে রাজ্যে সে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন যে বুথ স্তরের সংগঠন শক্তিশালী না হলে তৃণমূলকে কিন্তু রাজ্য থেকে হটানো যাবে না।আশা করা যাচ্ছে যে বাংলার আইটি সেলকে সংগঠন তৈরি করার কাজে লাগাবেন অমিত।


২০১৪ লোকসভা ভোটের সময় বিজেপির আইটি সেলের তৎপরতা ঘুম কেড়ে নিয়েছিল বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির। এরপরে সকলেই প্রযুক্তির গুরুত্ব বুঝতে শুরু করেন এবং ধীরে ধীরে বিজেপির পথ অনুসরণ করেন কিন্তু কেউই এখনো পর্যন্ত বিজেপির আইটি সেল টেক্কা দিতে পারেননি।আর যেহেতু বাংলা এখন বিজেপির পাখির চোখ তাই অমিত মালব্যকে এখানে সাংগঠনিক দায়িত্ব দিয়ে পাঠানো হয়েছে যাতে অমিত মালব্য নিজের আইটি সেল এর দক্ষতা দিয়ে বিজেপি কে জয়লাভ করাতে পারেন বাংলায়।

এছাড়াও হেস্টিংসে বিজেপির পার্টি অফিসে দলের আইটি সেলের কর্মীদের সঙ্গে বৈঠকও করবেন মালব্য। মূলত তৃণমূলের আইটি সেল এর সঙ্গে টক্কর দেওয়ার জন্যেই অমিত মালব্য কে একেবারে সাংগঠনিক দায়িত্ব দিয়ে পাঠানো হয়েছে বাংলায়, এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Reply