দেশ ভাগের পর কোনো বাংলাদেশী ভারতে অনুপ্রবেশ করেনি, মন্তব্য বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

বছরের শুরুতেই এনআরসি নিয়ে নানা ধরনের বিরোধ দেখা গিয়েছিল। কিছুদিন আগেও অমিত শাহ বাংলায় এসে বক্তব্য রাখেন যে, অনবরত বাংলাদেশ থেকে বাংলাদেশীরা অনুপ্রবেশ করছে, তাদেরকে এনআরসি ইস্যু দিয়ে দেশ থেকে বের করে দেওয়া হবে।

এই প্রসঙ্গকে টেনে এনে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বক্তব্য পেশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ১৯৭১ সালের দেশভাগের পর কোন বাংলাদেশ থেকে কোন বাংলাদেশী ভারতে প্রবেশ করেনি।

সম্প্রতি একটি গণমাধ্যম সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এমনটা দাবি রেখেছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেছেন যে, আমি জোর গলায় বলতে পারি ১৯৭১ সালের পর বাংলাদেশ থেকে কেউ ভারতে প্রবেশ করেনি।

এছাড়াও তিনি বলেন যে, ভারত আমাদের খুব ভালো বন্ধু ভারতের সাথে সম্পর্ক আমাদের খুবই সুন্দর সম্পর্ক। এই ছোটখাটো ব্যাপার নিয়েই সম্পর্কে কোনো আঁচ আসবে না এমনটাই মনে করা যেতে পারে।

অন্যদিকে এনআরসি নিয়ে কথা বলছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তার মতে এনআরসি নিয়ে বাংলাদেশের মানুষরা একদমই ভাবিত নয়। কারণ বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করার পর বাংলাদেশ থেকে একজন ভারতে প্রবেশ করেনি।

তবে দেশভাগের সময় অনেক মানুষ বাংলাদেশ থেকে ভারতে প্রবেশ করেছিল তার পরে কেউ করেনি। তবে অনেক রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই বক্তব্যগুলি অনেকটা প্রভাব ফেলতে পারে রাজনৈতিক মহলে।

এই সাক্ষাতকারের মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থার কথা তুলে ধরেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন বাংলাদেশে কোন গরীব রাষ্ট্র নয় তাই বাংলাদেশের মানুষরা কেন ভারতে গিয়ে বসবাস করবে।

এখন বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ভালোই এবং জিটিভির হারও বেড়েছে অনেকটা। অর্থাৎ এক কথায় বলতে গেলে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা এখন সচল। এছাড়াও বাংলাদেশের আয়ের অবস্থা বেশ ভালো। তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তার এই বক্তব্য মাধ্যমে বুঝিয়ে দিতে চাইলেন এনআরসি ইস্যু নিয়ে তার কোনো মাথাব্যথা নেই।

Reply