‘তৃণমূল নেতাদের বলছি পুলিশ নিয়ে ঘুরুন, পরে দোষ দেবেন না’ কেন এমন মন্তব্য দিলীপের?

কো’ভিড আ’তঙ্ক কাটিয়ে রাজ্য এখন নির্বাচনের জন্য উত্তেজিত হচ্ছে। বিজেপি বাকদ্বন্দ্ব যেন শেষই হচ্ছে না। শনিবার তপসিয়ায় তৃণমূল ভবনে বিকেল 3টায় কাকলি ঘোষ দস্তিদার প্রেস কনফারেন্স করার পরই উত্তর পর্বের মত পাল্টা প্রেস কনফারেন্স করলেন দিলীপ ঘোষ।

তাপসী দোস্তিদার আজ কনফারেন্স-এ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দারুন প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্যই এই রাজ্য এখন শান্তির স্বর্গ রাজ্য। এমনকি সৃষ্টি কৃষ্টিতেও প্রথম।

এই রাজ্যে মহিলাদের সুরক্ষা নিয়ে কোনো প্রশ্নই নেই। ” তাঁর মতে গোটা দেশে এমন মেয়েদের জন্য সুরক্ষিত কোনো রাজ্য আর নেই।

তাপসী দাবি করেন যে মমতা ক্ষমতায় আসার আগে 35 বছর ধরে রাজ্যে অত্যাচার ও শোষণ চলেছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই তো দশ বছরে রাজ্যের শান্তি শৃঙ্খলার চেহারা বদলেছেন।

দিলীপ ঘোষকে প্রেস কনফারেন্স-এ প্রশ্ন করা হয় , ‘তৃণমূল বাড়ি বাড়ি ঘুরে জনসংযোগ কর্মসূচি নিচ্ছে। আপনারা কি করবেন?’ এর উত্তরে বাংলার বিজেপি রাজ্যসভাপতি তৃণমূলকে তীব্র ক’টাক্ষ করেই উত্তর টা দেন।

তিনি বলেন যে, “ভালোই তো, আমরা তো চাই তৃণমূল মানুষের কাছে বাড়ি বাড়ি যাক। লোকে তো তৃণমূল নেতাদের সত্যিই খুঁজছে কাটমানি, সিন্ডিকেট, পঞ্চায়েতের টাকা, আমফানের টাকা, এবং রেশনের চালের হিসেব সব বুঝে নিতে। সব কিছু নিয়েই ওরা জিগ্যেস করবে এবার। তৃণমূলকে যাওয়াই উচিত।”

এরপর তিনি তৃণমূল নেতাদের সতর্ক করে বলেন, “তৃণমূল নেতারা যেন সাথে পুলিশ নিয়ে যান। যা করার মানুষই তো করবে তাই বিজেওয়ার ওপর যেন দোষ না বর্তায়।”

এছাড়াও তিনি আরও চরম কটাক্ষ করে বলেন যে ,’আমাদের নেতাদের বুথে বুথে খেতে দিচ্ছে থাকতে দিচ্ছে কিন্তু তৃণমূল নেতাদের খেতেও বলে নি। চৌধুরী মোহন জটুয়া কে তো বিজেপি কর্মীর বাড়িতে খেতে হয়েছে।”

Reply