“এমন সরকার আনতে হবে যে ধর্মের গঙ্গা বইয়ে দেবে” মন্তব্য কৈলাস বিজয়বর্গীয়

আবারো হরিবোল ধ্বনি শোনা গেল কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র কন্ঠে। মঙ্গলবার জয়নগরে এক জনসভায় উপস্থিত হয়েছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। সেখানে তিনি ছিলেন প্রধান বক্তা। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যজুড়ে বিজেপি সরকার গঠন করার ডাক দেন তিনি।

এদিন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের মুখে শোনা যায় পিএম কিষান প্রকল্পের কথা। এদিন কৈলাস বলেন, “পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেক চাষির ৬,০০০ টাকা করে নরেন্দ্র মোদীর কাছে জমা রয়েছে।

মোট ৯০,০০০ কোটি টাকা পড়ে রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে। দিদি কৃষকদের তালিকা পাঠান না বলে সেই টাকা চাষিদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে দেওয়া যাচ্ছে না।”

একইসঙ্গে কৈলাস বলেন,”নরেন্দ্র মোদী দেশের সমস্ত লোকশিল্পীকে পেনশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। ৬০ বছরের বেশি বয়স হলেই তাঁরা কেন্দ্রীয় পেনশন পাবেন। রাজ্য সরকারের সহযোগিতা ছাড়াই এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে কেন্দ্র”।

লোক শিল্পী দের উদ্দেশ্য করে কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেন,” নির্বাচনের আগে শিল্পীদের বাড়ি বাড়ি যেতে হবে। দেখতে হবে যেন ভাল সরকার ক্ষমতায় আসে। নরেন্দ্র মোদীর সরকার ক্ষমতায় আসে।

এমন সরকার আসবে যে ধর্মের গঙ্গা বইয়ে দেবে। আমাদের কীর্তন করতে বাধা দেবে না। বিসর্জন বন্ধ করবে না। তোষণ করবে না। সারা দেশে থাকবে সমানাধিকার”।

এদিন তিনি সকলকে মনে করিয়ে দেন,”অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণ হবে বলে কথা দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী। তিনি কথা রেখেছেন। রামমন্দির নির্মাণের কাজ ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে”।

সভার শেষভাগে কৈলাস বিজয়বর্গীয় “হরি বোল” ধ্বনি দেন। রাজ্যজুড়ে প্রতিটি জেলায় তৃণমূল কংগ্রেসের জীবিত রয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম হলো উত্তর ২৪ পরগনা।

বছর ক্ষমতায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আসার আগে থেকেই সেখানকার ভীত অনেক শক্ত হয়েছিল। এখনো পর্যন্ত এক বিন্দুও টলাতে পারেনি কেউ। যদিও এ বিষয়ে এখন বিজেপি যথেষ্ট তৎপর।

Reply