হিন্দু মেয়েদের বোন বলে ভাবতে হবে, মুসলিম যুবকদের পরামর্শ সাংসদের

লাভ জিহাদ’ শব্দটিকে রাজনৈতিক শক্তিবৃদ্ধির হাতিয়ার বানিয়েছে বিজেপি। এতে কান না দিয়ে হিন্দু মেয়েদের বোন হিসেবে ভাবতে শিখতে হবে মুসলিম যুবকদের। এমনই মন্তব্য সমাজবাদী পার্টির সাংসদ এস টি হাসানের।

উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদের এই সাংসদ জানিয়েছেন হিন্দুরা মুসলিমদের যেমন বিয়ে করতে পারে, তেমনি মুসলিমরাও হিন্দুদের বিয়ে করতে পারে। একে রাজনৈতিক রং দেওয়ার চেষ্টা চলছে। তবে হিন্দু মহিলাদের বোন বলে ভাবতে হবে মুসলিম যুবকদের। তবেই শান্তি ফিরবে।

এস টি হাসান জানান, যেখানে এক মুসলিম ছেলেকে একটি হিন্দু মেয়ে বিয়ে করে, সেখানে কিন্তু হিন্দু মেয়েটি জানে যে সে কাকে বিয়ে করতে চলেছে। কিন্তু ঘটনাটিকে অন্যভাবে সাজানো হয়। সামাজিক চাপে পড়ে পরিবার মুসলিম ছেলেটির বিরুদ্ধে মামলা করে বলে মত তাঁর।

এখানে মোরাদাবাদের ওই সাংসদের পরামর্শ হিন্দু মেয়েরা মুসলিম ছেলেদের বোন হিসেবে নিজেদের ভাবতে শিখুক। ভালবাসার প্রতারণায় যেন তাঁরা না পড়ে। নিজেদের রক্ষা করে রাখা শিখতে হবে। কারণ উত্তরপ্রদেশ সরকার এমন এক আইন এনেছে, যেখানে এই ধরণের ঘটনায় চরম শাস্তি পেতে হতে পারে।

এদিকে, মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশ সরকারের ক্যাবিনেট লাভ জিহাদের বিরুদ্ধে কড়া বিল পাশ করে। রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্ধার্থ নাথ সিং জানান জোর করে ধর্মান্তকরণ ও বিয়ে করার মত ঘটনা ঘটলে, বা বিয়ের জন্য ধর্মান্তকরণের ঘটনা ঘটলে কড়া ব্যবস্থা নেবে উত্তরপ্রদেশ সরকার।

রাজ্য সরকার জানিয়েছে এই ধরণের ঘটনার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তির অপরাধ প্রমাণিত হলে ৫ বছরের কারাদন্ড ও মোটা অঙ্কের জরিমানা ধার্য করা হবে। অভিযুক্ত ব্যক্তির এক থেকে পাঁচ বছরের জেল ও ১৫ হাজার টাকা জরিমানা হতে পারে বলে বিলে জানানো হয়েছে।

নাবালিকা ও তফশিলি উপজাতি ভুক্তদের ক্ষেত্রে জোর করে ধর্মান্তকরণ হলে তিন থেকে ১০ বছরের জেল ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য করা হবে বলে জানানো হয়েছে। লাভ জিহাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে উত্তরপ্রদেশ সরকার, এমন ইঙ্গিত মিলেছিল। রাজ্যের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এই অর্ডিন্যান্স নিয়ে আসার আগে প্রায় ১০০টি কেস খতিয়ে দেখে বিচার করা হয়েছে। তারপরেই চূডা়ন্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য।

Reply