এক শুভেন্দু যাবে, হাজার আসবে, ২৪ঘন্টায় ২০০পরিবারকে দলে টানলেন তৃণমূল নেতা

মুর্শিদাবাদ ‘নিরাপদ’ থাকলেও ‘নিরাপদ’ রইল না জলপাইগুড়ি। কারণ এখানে ভাঙন দেখা দিল। নিজেকে শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামী ঘোষণা করে তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়লেন বুবাই কর।

তবে তা অমিত শাহের সভায় শুভেন্দু যোগ দেওয়ার পরেরদিন। সূত্রের খবর, শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে ফোনে কথা হওয়ার পর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তবে কোন শর্তে রাজি হয়েছেন, তা জানা যায়নি। এর আগেও তৃণমূলের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছিলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি।

শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপি যোগদানের চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জ বিধানসভায় শক্তিপ্রদর্শন করল তৃণমূল। এদিন গোটা রাজ্যের চোখ যখন শাহি সভায়, তখনই রাজগঞ্জের ২০০ টি বিজেপি পরিবারের বহু বিজেপি কর্মী হাতে তুলে নিলেন তৃণমূলের পতাকা। শুধু তাই নয়, বড় কর্মীসম্মেলন পাল্টা বার্তা দিল গেরুয়া শিবিরকেও, অক্সিজেন পেল ঘাসফুল শিবির।

আজ এই যোগদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেস এসসি এসটি ওবিসি সেলের জেলা সভাপতি কৃষ্ণ দাস রাজগঞ্জ বিধানসভার অন্তর্গত বিন্নাগুড়ি অঞ্চলের আদর্শপল্লিতে এই সভায় উপস্থিত প্রাক্তন বিজেপি সমর্থকদের হাতে দলীয় পতাকা হাতে তুলে দিয়ে তাঁদের দলে স্বাগত জানান তিনিই।

সাংবাদিকদের তৃণমূল নেতা কৃষ্ণ দাস বলেন, “বিজেপি ভুল বুঝিয়ে মানুষকে নিয়ে যাচ্ছে। বিজেপি রাজবংশীদেরও ভুল বোঝাচ্ছে। এদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাদের রাজবংশী ভাষা. কামতাপুরী ভাষা, নারায়ণী ব্য়াটেলিয়ান দিয়েছে।

এদিকে বিজেপি শুধু ভোট নিয়েছে।” শুভেন্দু অধিকারী সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন তিনি। বললেন, “এক শুভেন্দু যাবে, হাজার শুভেন্দু আসবে। এরা চলে গেলে দলের হাতই শক্ত হবে।”

Reply