“বাংলাকে গুজরাট হতে দেব না”, সংগীতমেলার মঞ্চ থেকে শপথ মুখ্যমন্ত্রীর

“যতই নিন্দা করুন। বাংলাকে গুজরাট বানাতে দেব না”, সঙ্গীত মেলার উদ্বোধনী এসে হুংকার দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ধর্মীয় বিভাজনের বিরুদ্ধে বাংলার মানুষকে ল’ড়া’ইয়ের ডাক দেন তিনি।

সঙ্গীত দুনিয়ার বিভাজনের মধ্যে মানুষকে রুখে দাঁড়াতে আহ্বান জানান মমতা। কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে।

সঙ্গীত মেলার উদ্বোধন করতে আলিপুরের উত্তীর্ণতে বুধবার উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শিল্পী সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, বনশ্রী সেনগুপ্ত, দ্বিজেন বন্দ্যোপাধ্যায়, সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়দের নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

তাদের সাথে কিভাবে নিজের আত্মিক সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন তাও বর্ণনা করলেন। মুখ্যমন্ত্রীর লেখা গান দিয়ে সংগীত মেলার উদ্বোধন হয়। বাংলার প্রতিভাদের প্রতীক কুর্নিশ জানান মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন,”বাংলার বিভাজনের কোনও স্থান নেই। ধর্ম আলাদা হলেও মানুষ একই। গোটা মানবজাতি একটা পরিবার।” সভামঞ্চে দাঁড়িয়ে মমতার হুংকার,”যতই বাংলার বদনাম করার চেষ্টা হোক বাংলার আশেপাশে কেউ আসতে পারবে না।

বাংলাকে গুজরাত হতে দেব না।” তিনি আরো বলেন,”সংগীত যেমন নানা রঙের সমাহার নানা যন্ত্রের ব্যবহার তেমনই জীবনের নানা রঙ। এটাই বৃহত্তর মানবজাতির পরিচয়। একে ভাগ হতে দেব না।”

সঙ্গীত মেলার মঞ্চ থেকে সঙ্গীত সম্মানে পাহাড় থেকে জঙ্গলমহলের লোকপ্রসার শিল্পীদের সম্মানিত করেন মুখ্যমন্ত্রী। সাঁওতাল শিল্পী বাসন্তি হেমব্রমকে সঙ্গীত সম্মানে ভূষিত করেন তিনি।

লকডাউনের শিল্পীদের দুর্দিনের কথা উল্লেখ করে মমতা বলেন,”মহামারীর জন্য ক’মাস কোনও অনুষ্ঠান করতে পারেননি। ডিসেম্বর-জানুয়ারিতে ৬৩০টি মেলার আয়োজন করছে রাজ্য সরকার। সেখানে তাঁর অনুষ্ঠান করতে পারবেন।”

Reply