ট্যাবের টাকাতেও দুর্নীতি হবে, কাটমানি যাবে নির্বাচনী ফান্ডে: দিলীপ ঘোষ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার ইতিমধ্যেই একাধিক কর্মসূচি নিতে শুরু করেছে একুশের ভোট ম’হারণের আগে। তারমধ্যে যেমন স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প রয়েছে, তেমনই রয়েছে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের ট্যাবলেট প্রদানের কর্মসূচি। এমন এক পরিস্থিতিতে দিলীপ ঘোষ বোমা ফাটালেন তাঁর নয়া বক্তব্যে।

দ্বাদশের পড়ুয়াদের ট্যাবের বদলে অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্তকে কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বুধবার সকালে হাঁটতে বেরিয়ে সাংবাদিকদের দিলীপবাবু বলেন, এসবই কফিনে পেরেক মারা চলছে।

এদিন দিলীপবাবু বলেন, ‘নেতাদের ছেলেমেয়েদের দেওয়া হবে সেই লিস্ট তৈরি হচ্ছে। আমফানের মতো। আমি জানি না সেই লিস্ট করা বানিয়েছে। আমরা দেখছি, কজন পায়। এসব আসলে কফিনে পেরেক মারা হচ্ছে।

কারণ এতে যে দু’র্নী’তি হবে… ২,২০০ টাকার সাইকেল যদি ৩,৭০০ টাকা খরচ দেখানো হয় ট্যাবের ক্ষেত্রে আরও বেশি হবে কাটমানি। সেই টাকা দিয়ে ইলেকশন ফান্ড তৈরি হবে’।

রাজ্যের তরফে কিছুদিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন পড়াশোনার স্বার্থে দ্বাদশ শ্রেণির সাড়ে ৯ লক্ষ পড়ুয়াকে ট্যাব দেওয়া হবে। পরবর্তীতে মঙ্গলবার নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী জানান, এত সংখ্যক ট্যাব জোগাড় করা সম্ভব হচ্ছে না।

সেই কারণে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে পড়ুয়াদের অ্যাকাউন্টে ১০ হাজার টাকা দেওয়া হবে। বিরোধীদের অভিযোগ, টাকা দিয়ে বিধানসভা নির্বাচনের আগে পরিবারগুলি প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে সরকার। সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় সরব হয়েছে বাম-কংগ্রেস-বিজেপি সব পক্ষই।

Reply