“একুশে বিজেপি ক্ষমতায় আসবেই”, আত্মবিশ্বাসী শুভেন্দু অধিকারী

আবারো তৃণমূলকে উৎখাত করার জন্য সরব হলেন সদ্য বিজেপিতে যোগদান করা শুভেন্দু অধিকারী। প্রায় প্রত্যেকদিন রাজ্যের রাজনীতিতে দল পরিবর্তনের প্রক্রিয়া অব্যাহত।

মুখ্যমন্ত্রী ও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঝাড়গ্রাম থেকে কটাক্ষ করলেন তিনি। তৃণমূলের কাছে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে শুভেন্দুর দাবি,”একুশে বিজেপি ক্ষমতায় আসবেই”।

রবিবার ঝাড়গ্রামের লোধাশুলিতে বিজেপির পক্ষ থেকে যোগদান কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে শুভেন্দু অধিকারী পৌঁছান বেলা বারোটা নাগাদ।

দিলীপ ঘোষের নির্দেশে এদিনের সভায় এসেছেন শুভেন্দু এমনটাই জানালেন তিনি। এর পরে শাসকদলের বিরুদ্ধে একেরপর এক কটাক্ষ করতে শুরু করেন সদ্য বিজেপিতে যোগদান করার শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্যে বেকারত্ব এবং দুর্দশার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে দায়ী করলেন শুভেন্দু।

এদিন শুভেন্দু অধিকারী বলেন,”রাজ্য কেন্দ্রের প্রকল্পগুলোর নাম পালটে নিজেদের নামে চালাচ্ছে। আদতে মানুষের কোনও লাভ হচ্ছে না। কেন্দ্রের প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছে না। তাই মোদিজির হাতে বাংলাকে তুলে দিতেই হবে।

কেন্দ্র-রাজ্যে এক সরকার এলে তবেই মানুষের সুদিন ফিরবে।” তিনি আরো বলেন,”তোলাবাজ ভাইপোর পার্টিকে হারাতেই হবে। ভোটে ওদের অর্ধন’গ্ন করে ছাড়তে হবে। হাওয়া করে দিতে হবে। দিলীপ-শুভেন্দু বাংলায় পদ্ম ফোটাবেই। দক্ষিণ কলকাতার দেড়জনের কোম্পানিকে হারাবই।”

বিজেপির সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর “ডিল” প্রসঙ্গ নিয়ে শুভেন্দু বলেন,”বিজেপির সঙ্গে আমার ডিল হয়েছে প্রতিবছর এসএসসি করতে হবে। বেকারত্ব দূর করতে হবে।” এদিন শাসকদলের বিরুদ্ধে নির্বাচনের সময় দুর্নীতির অভিযোগ তোলেন শুভেন্দু অধিকারী।

কাটমানি এবং স্বজনপোষণের অভিযোগ তুলে শুভেন্দু বলেন,”ঝাড়গ্রামের প্রত্যন্ত এলাকায় অধিকাংশ মানুষের বাড়ি কাঁচা। কিন্তু তৃণমূল নেতাদের পাকা বাড়ি-গাড়ি। যার কিছুদিন আগেও কিছু ছিল না। আজ তিনি প্রচুর সম্পত্তির মালিক।” বাংলার নির্বাচনে বিজেপি আসবে। আত্মবিশ্বাসের সুর শোনা যায় শুভেন্দু অধিকারীর কন্ঠে।

Reply