“রাজা-মন্ত্রী হওয়া যাবে না বুঝে মুকুট পরছেন”, অনুব্রতকে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের

সংবাদের শিরোনামে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অনুব্রত মণ্ডল এবং বিজেপির পক্ষ থেকে দিলীপ ঘোষ প্রত্যেকদিন হাজির থাকেন। নতুন নতুন বাকবিতণ্ডা নিয়ে নাম করে কিংবা নাম না করে দুজন দুজনকে কটাক্ষ করতেও ছাড়ে না।

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে এই বাকবিতণ্ডা যেন কয়েক শ গুণ বেড়ে গিয়েছে। এবার রুপোর মুকুট পরা নিয়ে অনুব্রত মণ্ডলকে স্বভাবসিদ্ধভাবে খোটা দিলেন দিলীপ ঘোষ।

বীরভূমের নানুরে মিলন মেলায় শুক্রবার উপস্থিত ছিলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে অনুব্রত মণ্ডলকে ২ কেজি ওজনের রুপোর মুকুট উপহার হিসাবে মাথায় পরিয়ে দেন।

ওই মুকুট পরে মঞ্চে বসে থাকতে দেখা গিয়েছিল অনুব্রত মণ্ডলকে। সেই মুকুট পরা নিয়ে এবার অনুব্রত মণ্ডলকে কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

শনিবার সকালে টালা পার্কের চা চক্রে যোগ দান করে দিলীপ ঘোষ বলেন, “অনেকে ধরে নিয়েছেন, আর তো রাজা বা মন্ত্রী হওয়া যাবে না, তাই কেউ কেউ মুকুট পরছেন।”

মিলন মেলার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে অনুব্রত মণ্ডল নাম না করে বিজেপিকে করেছিলেন। গেরুয়া শিবিরকে ঠেঙিয়ে পগারপার করার কথা বলেন তিনি। জবাবে দিলীপ ঘোষ বলেন,”ওখানকার লোকেরা এর জবাব দিয়ে দেবে।”

তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। এবার দাদার হাত ধরে ভাই সৌমেন্দুও যোগ দিলেন বিজেপিতে। শুভেন্দু, সৌমেন্দুর মতোই শিশির কিংবা দিব্যেন্দু অধিকারীও কি এবার বিজেপিতে যাবেন! শুরু হয়ে গিয়েছে জল্পনা। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন,”ওঁরা দু’জনেই সাংসদ, আসতেই পারেন। আমরা সবার জন্য দরজা খুলে রেখেছি।”

এদিন আরো একবার দিলীপ ঘোষের কণ্ঠে বাংলা থেকে তৃণমূলকে উৎখাতের ডাক শোনা যায়। তিনি বলেন,”মেদিনীপুর নিয়ে চিন্তা নেই। ৩৫টা আসন আমরাই জিতব। জঙ্গলমহল থেকে তৃণমূলকে ফাঁকা করা শুরু হয়েছে, গঙ্গা পর্যন্ত চলবে।” যদিও শাসক দলের পক্ষ থেকে দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের পাল্টা মন্তব্য এখনো করা হয়নি।

Reply