বাইডেনের শপথে থাকবেন না, টুইটে জানালেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

আগামী ২০ জানুয়ারি আমেরিকার নয়া প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে হাজির থাকবেন না বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। টুইট করে একথা নিজেই জানিয়েছেন ট্রাম্প। যদিও শেষমেশ বহু জটিলতার পর বাইডেনকে ক্ষমতা হস্তান্তরে রাজি হয়েছিলেন ট্রাম্প। কিন্তু শুক্রবার ফের তাঁর এই টুইট নতুন করে বিতর্ক তৈরি করল।

আগামী ২০ জানুয়ারি আমেরিকার নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিতে চলেছেন জো বাইডেন। মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট পদে শপথ নেবেন ভারতীয় বংশোদ্ভুদ কমলা হ্যারিস। বুধবারই টুইটে ট্রাম্প বলেছিলেন, আমেরিকার ভোটের ফলাফল তিনি মানেন না। তার পরেই মূলত ট্রাম্পের উসকানিতেই ক্যাপিটল ভবনে হামলা চালায় ট্রাম্প সমর্থকরা। ট্রাম্প সমর্থকরা সংসদে ঢুকে ভাঙচুর শুরু করে। নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়।

বিশ্ব জুড়ে সেদিন সমালোচনার ঝড় উঠেছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল ভবনে বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকদের তান্ডবে স্তম্ভিত আমেরিকা-সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। সবথেকে বেশি সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেই। এই বিক্ষোভে তাঁর প্রত্যক্ষ ইন্ধন রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছিল। নিজের সমর্থকদের কোনও রকম শান্ত করার চেষ্টা করেননি ট্রাম্প বলেও অভিযোগ উঠেছিল।

শেষমেশ বিদায়ী প্রেসিডেন্ট তাঁর সমর্থকদের শান্ত থাকার আবেদন করেন। ভিডিওবার্তায় ট্রাম্প বলেন, ‘‘ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শান্তিপূর্ণ হোক। এই অশান্তি বন্ধ হোক। ২০ জানুয়ারি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নতুন সরকার ক্ষমতায় আসছে। সেই প্রক্রিয়া সুস্থ, গঠনমূলক ও সংবিধানসম্মত হোক।’’ ১৬০ সেকেন্ডের ভিডিওতে ট্রাম্প আরও বলেন, ‘‘হোয়াইট হাউসে তাঁর প্রেসিডেন্ট পদের মেয়াদের সময়, তাঁর জীবনের সবচেয়ে বড় সম্মান।’’

বুধবারের হিংসার কড়া সমালোচনা করে ট্রাম্প বলেন, ‘‘যাঁরা আইন নিজেদের হাতে নিয়েছেন, কড়া শাস্তি পাবেন। আবেগকে সংযত রাখা উচিত ছিল। এই বিক্ষোভকারীরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি নন।’’ এদিকে, এই মন্তব্যের একদিন পরেই শুক্রবার ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে ফের টুইট ট্রাম্পের। এবার তিনি জানিয়েছেন, আগামী ২০ জানুয়ারি বাইডেনের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে তিনি থাকবেন না।

Reply