Thursday , September 23 2021
Breaking News

বাজার আগুন, জামাইদের খুশি করতে নাভিশ্বাস শ্বশুরদের

বাঁকুড়া : রাত পোহালেই জামাইষষ্ঠী (jamai sasthi)। জামাইরা এই লকডাউনের বাজারেও মনে মনে বলছে শ্বশুরবাড়ি ভারী মজা…..রেঁধে বেড়ে জামাইয়ের মন খুশ করে দেওয়ার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করবে শ্বাশুড়িরা। কিন্তু বাজার সরকারের হলদ খারাপ। একে লকডাউনে কমেছে সাশ্রয়। তার উপর চড়া বাজারদর। ষষ্ঠীর আগে বাজারে গিয়ে হাতে ছেঁকা লাগছে শ্বশুরদের।

কী মাছ (fish), কী মাংস (meat), সবজি (vegetable), ফল থেকে মিষ্টি সবকিছুর দাম আকাশছোঁয়া। ফলে চরম সমস্যায় মধ্যবিত্ত বাঙালি শ্বশুরের (father in law) দল। একদিকে জামাই আদরে খামতি রাখতেও মন চায় না। অন্যদিকে পকেটে টান।

কলকাতা (kolkata) থেকে সুদূর বাঁকুড়া (bankura) সর্বত্র একই অবস্থা। দাম শুনলে মাথা খারাপ হবে। যেমন বাঁকুড়ার কোতুলপুর বাজার। সেখানে গিয়ে দেখা গেল আলু কেজি প্রতি ১৫ টাকা, বেগুন ৫০, পেঁয়াজ ২৫, কাঁচা লঙ্কা ১০০, ঝিঙে ৩০, পটল ২০, টমেটো ৩০, করোলা ৫০, মূলো ১০০, গাজর ৫০। রুই মাছ ২০০, চিংড়ি ৫০০, খাসির মাংস ৭০০ টাকা কেজি প্রতি, কাঁঠাল ২০০ টাকা পিস, লিচু ১৫০, আম ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিন সকালে বাজারে আসা নিমাই চন্দ্র দাস, ভোলানাথ পাত্ররা বলেন, ‘প্রতিটি জিনিসের দাম যেভাবে বেড়েছে হাত দেওয়াই ভার। আগে যেখানে একশো টাকায় কাজ হতো এখন সেখানে ৭০০ টাকা লাগছে। ফলে যেটুকু না করলেই নয় সেটুকুই বাজার করেছি।’

মাছ বিক্রেতা সনাতন মল্লিক থেকে সবজি ব্যবসায়ী সন্তোষ কুণ্ডুরা বলেন, ‘বিক্রি এবার যথেষ্ট কম। অন্যান্য বছর মানুষ দু’তিন আগে থেকেই বাজার করতেন। এবার সেই ছবি উধাও। এক দিকে করোনাকালে মানুষের রোজগার কম, অন্যদিকে জিনিসপত্রের আকাশছোঁয়া দাম। ফলে বিক্রি সেভাবে নেই বলেই তারা জানান।’

ঘটনা হল পেট্রোল ডিজেলের দামও প্রভাব ফেলছে বাজারের দামে। গত ২৫ দিনে বিপুল দাম বেড়েছে পেট্রোল-ডিজেলের (petrol diesel) দাম (price)। তার অঙ্ক দেখকে চমকে যাবেন। দ্রুত দু একদিন ছাড়াই বাড়ছে জ্বালানির দাম (fuel price)। দেখা যাচ্ছে গত ২৫ দিনে পেট্রোলের দাম বৃদ্ধি বেড়েছে ৬.০৯ টাকা। ডিজেলের (diesel) দাম বেড়েছে ৬.৩০ টাকা বেড়েছে ৷

কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান এই দাম বৃদ্ধি নিয়ে বলেছেন, ‘মানছি জ্বালানির দামবৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষের অসুবিধা হচ্ছে। কিন্তু এক বছরে ৩৫ হাজার কোটি টাকা খরচ করা হয়েছে করোনার ভ্যাকসিনের জন্য। এই কঠিন পরিস্থিতিতে কল্যাণমূলক প্রকল্পের জন্য আমরা অর্থ সঞ্চয় করছি।’

অর্থাৎ তাঁর কথা অনুযায়ী ভ্যাকসিনের জন্য পেট্রোল ডিজেলের দাম বাড়ানো হচ্ছে। এদিকে পেট্রোল-ডিজেলের এমন দাম বৃদ্ধি প্রভাব ফেলছে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর উপর। সবকিছুর দাম ক্রমশ বর্ধমান। আর্থিক সমস্যায় মধ্যবিত্ত পরিবার। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিরোধীরা।

About A..

Check Also

পীযূষের নিশানায় হিদেসি ই-কমার্স সংস্থা।

ছোট ব্যবসা খেয়ে নিচ্ছে আমেরিকার ই-কমার্স, মন্ত্রীর নিশানায় কি অ্যামাজন, ওয়ালমার্ট

মাইক্রোব্লগিং সাইট থেকে এ বার আমেরিকার ই-কমার্স সংস্থার সঙ্গে সঙ্ঘাত গড়াল ভারতের। নাম না করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *