Thursday , September 23 2021
Breaking News

ন্যাটোকে হুমকি চিনের! ‘কুৎসা’ রটানো থেকে বিরত থাকার বার্তা বেইজিংয়ে

বেইজিং: চিন (China) বিশ্বজুড়ে সংকট তৈরি করছে। অন্য কোনো দেশের সঙ্গে কোনোরকম সমঝোতায় যেতে চাইছে না চিনের একনায়কতান্ত্রিক সরকার। এই প্রথম ন্যাটোর (NATO) বৈঠকে চিনকে এভাবে সরাসরি আক্রমণ করা হলো। তারপরেই মার্কিন রাষ্ট্রপতি বাইডেনের (Joe Biden) বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ উগরে দেয় চিন। এমনকি জোটের নেতাদের তার বিরুদ্ধে ‘কুৎসা রটানো’ থেকে দূরে থাকার বার্তা দিয়েছে চিন।

ন্যাটোর (NATO) প্রধান জেনস স্টোলটেনবার্গ (Jens Stoltenberg) তার বক্তৃতায় বলেন, “ইউরোপ এবং অ্যামেরিকাকে চিনের বিরুদ্ধে সরব হতেই হবে। চীনের একনায়কতান্ত্রিক সরকার যে ভাবে চলছে, তা মেনে নেওয়া যায় না।”

চিন যেভাবে পরমাণু শক্তি বাড়াচ্ছে এবং যেভাবে চিনের সামরিক শক্তি বৃদ্ধি পাচ্ছে, তাতে চিন্তিত ন্যাটো। শুধু তাই নয়, চিন যেভাবে প্রকাশ্যে তাদের সামরিক শক্তি বৃদ্ধির নীতি ঘোষণা করেছে, তা নিয়েও চিন্তিত ন্যাটো। তাদের ধারণা, রাশিয়াকে পাশে নিয়ে এশিয়া প্যাসিফিকে চিন দাদাগিরি করতে চাইছে।

চিনের বিরুদ্ধে সরব হলেও স্টোলটেনবার্গ একটি কথা স্পষ্ট করে দিয়েছেন। কোনওভাবেই নতুন ঠান্ডা যুদ্ধে নামতে চায় না ন্যাটো। জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মের্কেলের কথাতে সে বিষয়টি আরও স্পষ্ট হয়েছে। মের্কেল বলেছেন, চিনের বিরুদ্ধে সরব হতে হবে, কিন্তু ভারসাম্য রেখে চিনকে আক্রমণ করতে হবে। নইলে বিপদ বাড়বে।

ন্যাটোর এমন বিবৃতির পরেই ঝাঁঝালো আক্রমণ করে চিনের বিদেশ মন্ত্রকের এক মুখপাত্র ঝা লিজিয়ান। তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের “ভিন্ন স্বার্থ” রয়েছে। তবে তিনি ইউরোপীয় অন্য দেশকে সতর্ক করে বলেন, “মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চীন বিরোধী যুদ্ধের রথে নিজেকে বাঁধবে না”।

ইংল্যান্ডে সদ্য সমাপ্ত জি–৭ শীর্ষ বৈঠকে চিন নিয়ে আলোচনা চলাকালে নেতারা জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর (Uyghurs) নির্যাতন ও সেখানে মানবাধিকার (human rights) লঙ্ঘনের ঘটনায় প্রশ্ন তোলেন। সেই সঙ্গে হংকংয়ের স্বায়ত্তশাসন যথাযথ রাখা এবং তাইওয়ান-সহ এ অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার উপরও জোর দেন তাঁরা।আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, ‘চিনের উচিত মানবাধিকার সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক বিধিবদ্ধতাকে আরও দায়িত্ব সহকারে মেনে চলা।’

About A..

Check Also

সেই ভয়ঙ্কর সৌরঝড়। -ফাইল ছবি।

আসছে ভয়ঙ্কর সৌরঝড়, ভেঙে পড়তে পারে বিশ্বের ইন্টারনেট যোগাযোগ, অশনিসঙ্কেত গবেষণার

ভয়ঙ্কর সৌরঝড় (‘সোলার স্টর্ম’) আসছে। যার ফলে ভেঙে পড়তে পারে গোটা বিশ্বের যাবতীয় ইন্টারনেট যোগাযোগ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *