Tuesday , September 21 2021
Breaking News
হারের পর হতাশ কোহলী।

আরও একটা ফাইনাল হারলেন বিরাট, সেরা টেস্ট দলের ট্রফি নিয়ে গেল নিউজিল্যান্ড

বুধবার বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালের ষষ্ঠ দিনের খেলা শুরুর আগে একটি টুইট করেছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। জানিয়েছিলেন, বুধবার প্রথম ১০ ওভার যে দল ভাল খেলতে পারবে, ম্যাচ জেতার সম্ভাবনাও তাদেরই বেশি। দিনের শেষে মাস্টার ব্লাস্টারের কথা অক্ষরে অক্ষরে মিলে গেল। প্রথম দশ ওভারে সেই যে ভারতের উপর আধিপত্য দেখানো শুরু করল নিউজিল্যান্ড, গোটা দিনে তা কেড়ে নিতে পারল না বিরাট কোহলীর ভারত। আরও একটা ফাইনাল হারলেন কোহলী।

বৃষ্টির কোনও পূর্বাভাস ছিল না। সকাল সকালই ভারতের ‘ওয়েদার ম্যান’ দীনেশ কার্তিক সাদাম্পটনের রোদ ঝলমলে ছবি টুইট করেছিলেন।

বোঝা গিয়েছিল, পুরো দিনের খেলাই সম্ভবত হতে চলেছে। বাস্তবিকই তাই। মাথার উপর রোদ থাকল গোটা ম্যাচেই। আর সেই রোদের আলোয় ঝলমল করলেন ট্রেন্ট বোল্ট, টিম সাউদি, কেন উইলিয়ামসনরা।

খেলা শুরু করেছিলেন কোহলী এবং চেতেশ্বর পূজারা। প্রথম কয়েকটা ওভার তাঁদের দৃঢ়প্রতিজ্ঞ মনোভাব দেখে মনে হয়েছিল স্কোরবোর্ডে বড় রান উঠতে চলেছে। ষষ্ঠ ওভারের মাথায় ঝটকা দিলেন সেই কাইল জেমিসন। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও তুলে নিলেন কোহলীকে। দু’ওভার পরে ফিরিয়ে দিলেন পূজারাকেও। এত কিছুর পরেও আশা ছিল বড় রান ওঠার। কারণ ক্রিজে ছিলেন অজিঙ্ক রহাণে এবং ঋষভ পন্থ। কিন্তু কিউই বোলারদের সুইং এবং বাউন্সের সামনে শুরু থেকেই নড়বড়ে লাগছিল রহাণেকে। ফল? মধ্যাহ্নভোজের আগেই বোল্টের বলে বি জে ওয়াটলিংয়ের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন তিনি।

প্রথম সেশনে তিন উইকেট হারিয়ে কার্যত ধুঁকছিল ভারত। তবে বিরতির পর ভারতের খেলায় সেই ধরে খেলার মনোভাব দেখা গেল। মাঝে মাঝেই আলটপকা ব্যাট চালিয়ে বিপদ ডেকে আনছিলেন পন্থ। উল্টো দিকে রবীন্দ্র জাডেজা বরং অনেক সতর্ক ছিলেন।

কিন্তু নিল ওয়াগনারের সুইং ফিরিয়ে দিল তাঁকে। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের সঙ্গে সামান্য জুটি গড়ার পর সেই আলটপকা শট খেলতে গিয়ে ফিরলেন পন্থও। তবে পয়েন্ট থেকে অনেকটা দৌড়ে তাঁর ক্যাচ নেওয়ার জন্য কৃতিত্ব প্রাপ্য হেনরি নিকোলসেরও। ভারতের খেলার মধ্যে সেই ঝাঁঝ দেখাই যায়নি। খোঁচা দেওয়ার স্বভাবও যায়নি। দ্বিতীয় ইনিংসে পাঁচ ভারতীয় ব্যাটসম্যান আউট হয়েছেন খোঁচা দিয়ে। ১৭০-এই মুড়িয়ে গেল দ্বিতীয় ইনিংস।

জেতার জন্য ৫৩ ওভারে ১৩৯ রান দরকার ছিল উইলিয়ামসনদের।

টম লাথাম এবং ডেভন কনওয়ে শুরুটা করেছিলেন ভাল ভাবেই। কয়েক ওভারের ব্যবধানে দু’জনকেই তুলে নিলেন অশ্বিন। আচমকাই তখন জয়ের গন্ধ পেতে শুরু করেছে ভারত। কিন্তু যত সময় গেল, সেই গন্ধ মিলিয়ে গেল। ধীরে ধীরে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে নিয়ে নিলেন রস টেলর (অপরাজিত ৪৭) এবং কেন উইলিয়ামসন (অপরাজিত ৫২)। প্রথম ইনিংসের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও অর্ধশতরান উইলিয়ামসনের। অধিনায়কোচিত ইনিংস বেরোল তাঁর ব্যাট থেকে।

তথ্যসূত্রঃআনন্দবাজার পত্রিকা

About A..

Check Also

ট্রফিতে চুম্বন মেসির।

দুঃখ পেয়েছি বহু বার, তবে জানতাম একদিন দেশের হয়ে ট্রফি জিতবই, বললেন মেসি

এই মুহূর্তটাই দেখতে চাইছিল বিশ্ব। এই মুহূর্তটাই দেখতে চাইছিলেন তাঁর অগণিত অনুরাগীরা। লিয়োনেল মেসির হাতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *